ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
দুই বাহু মেদমুক্ত রাখতে

দুই বাহু মেদমুক্ত রাখতে

20Fours Desk | আপডেট : ৮ জুন, ২০১৯ ১১:৫৩
দুই বাহু মেদমুক্ত রাখতে

বর্তমান সময়ে সবথেকে বেশি যে ব্যাপারগুলোর প্রতি মানুষের আগ্রহ বেড়েছে তার মধ্যে ওজন কমানো অন্যতম। স্বাস্থ্য সচেতন নাগরিকরা এখন তাদের বাড়তি ওজন কমাতে নানানরকম প্রন্থ অবলম্বন করছেন। কারো পেটের বাড়তি মেদের সমস্যা তো কারো হাতের তো আবার কারো মুখের। মুলত বাড়তি মেদ কমাতে ডায়েট থেকে শুরু করে ব্যায়াম জিমে যাওয়া সবরকম প্রচেষ্টা করে যাচ্ছেন। তবে আজকে জানবো আমরা ঘরোয়া উপায়ে দুই বাহু মেদ্মুক্ত রাখায় জন্য কিছু টিপস।

চলুন তাহলে দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক ঘরোয়া উপায়ে দুই বাহু মেদ্মুক্ত রাখায় জন্য কিছু টিপসঃ

১। খাদ্যতালিকায় প্রোটিনের মাত্রা বেশি হলে আপনার পেশি সুগঠিত হবে, সেই সঙ্গে বাড়বে বিপাক ক্রিয়ার হার৷ মেটাবলিজ়ম বাড়লেই বাড়তি ক্যালোরি খরচ করতে আরম্ভ করবে শরীর৷ তাছাড়া প্রোটিন পেট ভরিয়ে রাখে অনেকক্ষণ৷ ফলে তাড়াতাড়ি খিদে পাবে না, হাতের কাছে থাকা জাঙ্ক ফুড খেয়ে পেট ভরানোর চেষ্টাও করবেন না৷ তবে মনে রাখবেন, প্রোটিন বাড়ানো মানে কিন্তু অন্য ফুড গ্রুপগুলিকে একেবারে ছেঁটে ফেলা নয়৷ ডিম, মুরগি, মাছ, সবুজ পাতাযুক্ত শাকসবজি, বিনস, ডাল, ছানা, দই খেতে পারেন পুষ্টিবিদের পরামর্শ অনুযায়ী৷

২। হাত নির্মেদ ও টোনড রাখতে চাইলে কিন্তু চিনি ছেঁটে ফেলতেই হবে খাদ্যতালিকা থেকে, অন্য কোনও রাস্তা নেই৷ যাঁরা মিষ্টি খেতে ভালোবাসেন তাঁরা মিষ্ট স্বাদের ফল খেতে পারেন, কিন্তু চা-কফিতেও চিনি চলবে না৷

৩। টোনড হাতের মালিক হতে চাইলে ওয়েট ট্রেনিংয়ের কোনও বিকল্প নেই৷ অনেক মেয়েই মনে করেন যে ওয়েট ট্রেনিং করলে মাসল অত্যন্ত শক্তিশালী হয়ে উঠে দেখতে খারাপ লাগবে৷ আসলে কিন্তু এ সব ধারণা একেবারেই ভিত্তিহীন৷ মেয়েরা প্রাকৃতিক কারণেই মাসকুলার হবেন না৷ তাই নিশ্চিন্তে বাইসেপ কার্লস, ডাম্ববেল রাইজ়সহ সাইড প্ল্যাঙ্ক, ট্রাইসেপ ডিপস করতে পারেন৷ তবে একজন প্রশিক্ষিত ট্রেনারের পরামর্শ নিয়ে করলে আরও ভালো পাবেন, চোট পাওয়ার ঝুঁকিও থাকবে না৷

৪। নজর রাখুন খাওয়াদাওয়ার উপর৷ সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, আন্দাজ এক পাউন্ড ফ্যাট বার্ন করার জন্য ৩৫০০ ক্যলোরি পোড়াতে হয়৷ তাই খাদ্যতালিকা থেকে ফ্যাটের পরিমাণ ছেঁটে ফেলার চেষ্টা করুন৷ যা যা খাচ্ছেন, তাতে ক্যালোরির পরিমাণ কতটা, তা একটা নোটবইতে লিখে রাখুন৷ তাতে হিসেব রাখাটা সহজ হবে৷

এছাড়াও যত তাড়াই থাক না কেন, পেট ভরে ব্রেকফাস্ট খেতে ভুলবেন না৷ ব্রেকফাস্ট আপনার পেট ভরিয়ে রাখবে, সারাদিন উলটোপালটা খাওয়া বা অনিয়ম করার আশঙ্কা কমে৷

উপরে