ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০১৯
ওজন কমাতে

ওজন কমাতে স্বাদবর্ধক ৫টি খাবার

20Fours Desk | আপডেট : ১৪ মার্চ, ২০১৯ ১১:১৩
ওজন কমাতে স্বাদবর্ধক ৫টি খাবার

ওজন নিয়ন্ত্রণে নেই, এমন মানুষগুলোকে প্রায়ই পড়তে হয় নানা ধরনের বুদ্ধি-পরামর্শের মধ্যে। আপনি হয়তো ঠিক ক্যালরি মেপে খাচ্ছেন, নিয়মিত পরিশ্রম করছেন, কিন্তু ওজন কমছে না।

তাই ওজন কমাতে চাইলে এগোতে হবে একটু হিসাব করেই আর তাতে প্রয়োজন হবে ধৈর্য। অনেক দিনে তৈরি হওয়া বাড়তি ওজন দুই দিনেই কমে যাবে না এই ধারণা নিয়েই চলতে হয় লক্ষ্যের দিকে। ওজন কমানো কিন্তু একেবারে কঠিন কিছু নয়। কিছু নিয়ম মেনে চলা, একটু হিসাব করা আর কিছু ভালো খাদ্যাভ্যাস তৈরি করা। ব্যস, হয়ে গেল। আর তাই আজকে আপনাদের সুবিধার্থে আমরা আপনাদের জানাবো ওজন কমাতে স্বাদবর্ধক ৫টি খাবার এর কথা যা আপনাদের  আপনার টেস্টলেস ডায়েটকে টেস্টি করে তুলবে সেই সাথে আপনার মুখের স্বাদ বৃদ্ধির পাশাপাশি ওজন কমাতে সাহায্য করবে।

চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক ওজন কমাতে স্বাদবর্ধক ৫টি খাবারগুলোঃ

(১) টকদইঃ টকদইয়ে প্রোবায়োটিক ব্যাকটেরিয়া রয়েছে যা পেটের ইনফেকশন দূর করে থাকে। উচ্চ প্রোটিন সম্পূর্ণ টকদই পেটকে দীর্ঘসময় ভরিয়ে রাখে এবং ক্ষুধার সময় সুগার লেভেল অটল রাখে। এতে প্রচুর ক্যালসিয়াম রয়েছে, যা ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে। ফ্রুট সালাদে টকদই দিয়ে খেতে পারেন। এছাড়া চিনি ছাড়া টকদইয়ের শরবত খেতে পারেন।

(২) এয়ার পপকর্নঃ পপকর্ন খাবারটি কম বেশি সবার পছন্দ। ডায়েট করতে যেয়ে অনেকেই এই পছন্দের খাবারটি বাদ দিতে হয় । হোমমেইড এয়ার পপকর্ন আপনার পপকর্ন খাওয়ার শখ মেটানোর পাশাপাশি ওজন কমাতে সাহায্য করবে। এয়ার পপকর্নে অল্প পরিমাণের ভিটামিন, মিনারেল, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, ভিটামিন এ, জিঙ্ক, আয়রন এবং কপার রয়েছে। তবে চিজ পপকর্ন বা সল্টেড পপকর্ন খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

(৩) আপেলঃ আপেল নিয়ে সবচেয়ে প্রচলিত কথাটি হলো, প্রতিদিন একটি করে আপেল খান আর ডাক্তারকে দূরে রাখুন। ওজন কমানোর জন্য আপেল একটি আর্দশ ফল। আপেলের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান আপনার মেটাবলিজমকে বুস্ট করে, যা শরীরে বাড়তি মেদ ঝড়াতে সাহায্য করে। আপেলে রয়েছে ভিটামিন সি, বি কমপেক্স ভিটামিন, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম এবং ফসফরাস। সারাদিনের ছোটখাটো ক্ষুধা দূর করতে আপেলকে খাদ্য তালিকায় প্রথমে রাখুন।

(৪) কটেজ চিজঃকটেজ চিজ আপনার ওজন বৃদ্ধি করবে না বরং ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করবে। কটেজ চিজে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম রয়েছে যা মেদ কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া এতে রয়েছে ভিটামিন এ, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, সেলিয়াম, জিঙ্ক এবং ফসফরাস। সালাদ, স্যান্ডউইচ কিংবা স্যুপে আপনি কটেজ চিজ ব্যবহার করতে পারেন। এটি আপনার বোরিং খাবারকে করবে আরো বেশি সুস্বাদু এবং মজাদার।

(৫) কাঠবাদামঃ ডায়েট মানে সবধরণের বাদাম খাওয়া নিষেধ এই ধারণাটা একদমই ভুল। কাঠবাদাম আপনার ওজন বৃদ্ধি করবে না, বরং আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে। কাঠবাদাম ফাইবার যুক্ত প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার যা আপনার পেট ভরিয়ে রাখে দীর্ঘ সময়। আর কাঠবাদামের ভিটামিন ই হার্টকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। ক্ষুধা লাগলে এক মুঠো কাঠবাদাম খেয়ে ফেলুন, এটি মুখের স্বাদ বৃদ্ধির পাশাপাশি পেটকেও ভরিয়ে রাখবে দীর্ঘক্ষণ।

উপরে