ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
বাঁশতলা স্মৃতিসৌধ, দোয়ারাবাজার, সিলেট হতে

ঘুরে আসুন বাঁশতলা স্মৃতিসৌধ, দোয়ারাবাজার, সিলেট হতে

20Fours Desk | আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৩:২৯
ঘুরে আসুন বাঁশতলা স্মৃতিসৌধ, দোয়ারাবাজার, সিলেট হতে

টিলার ওপর মাঠ, এমন দৃশ্য হয়! কিন্তু টিলার ওপর চোখ জুড়ানো স্মৃতিসৌধ? আপনি না ভেবে থাকলে কিংবা এমনটি না দেখে থাকলে আপনাকে যেতে হবে সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার বাঁশতলা গ্রামে। শুধু স্মৃতি সৌধ নয়, এখানে আছে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ১৪ জন মুক্তিযোদ্ধার সমাধী বা কবর। সব মিলিয়ে তিন দিকে মেঘালয় পর্বতমালা ঘিরে থাকা বাঁশতলা স্মৃতিসৌধ এক কথায় অসাধারণ। এখানে সৌন্দর্যের আরো সঙ্গী পাবেন-চেলাই খালের ওপর স্লুইজগেট বা পানির ব্যারেজ ও টিলার ওপর জুমগাঁও।

সিলেটের দোয়ারাবাজার উপজেলার উত্তরে ভারতের চেরাপুঞ্জি ও মেঘালয় রাজ্য। পূর্বে ছাতক উপজেলা, দক্ষিণ ও পশ্চিমে সুনামগঞ্জ জেলা। সুনামগঞ্জ থেকে দোয়ারাবাজারের দূরত্ব প্রায় ২০ কিলোমিটার। সিলেট থেকে ৫০ কিলোমিটার উত্তরে দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদ। দোয়ারাবাজার সুরমা নদীর উত্তরপাড়ে হওয়ায় সড়ক পথে সরাসরি যোগাযোগ নেই। ভারত সীমান্তের কাছে হওয়ায় খুব শীতও পড়ে এখানে। ১৯৮৪ সালে উপজেলা পরিষদ গঠনের পর সাতটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত হয়েছিল এই দোয়ারাবাজার উপজেলা। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত এ উপজেলায় রয়েছে পর্যটনের অপার সম্ভাবনা। জেলার সর্বাধিক মুক্তিযোদ্ধার বসবাসও এ উপজেলায়।

পাহাড়বেষ্টিত বাঁশতলা এলাকায় এবং তার আশপাশে মুক্তিযুদ্ধে যারা শহীদ হন, তাদের সমাহিত করা হয় বাঁশতলার এ নির্জনে। সেই স্মৃতিকে অম্লান করে রাখার জন্য নির্মাণ করা হয় বাঁশতলা স্মৃতিসৌধ। চারপাশের গাছগাছালি আর পাখির কিচির-মিচির আওয়াজ এক অন্য রকম পরিবেশের সৃষ্টি করে। স্মৃতিসৌধের চারপাশের সৌন্দর্য পলকহীন চোখে উপভোগ করার মত। স্মৃতিসৌধের পেছনে তাকালে বোঝা যায় দূরে পাহাড়গুলো আকাশ ছুঁয়েছে। যেন পাহাড়ে উঠতে পারলেই আকাশ হাতের মুঠোয়। ওপরে নীল আকাশ, নিচে থই থই জলরাশি স্বচ্ছ আর নীল। স্মৃতিসৌধের বামপাশের রাস্তা দিয়ে কিছুটা হেঁটে দেখতে পাওয়া যাবে সবুজ ছায়ায় মুক্তিযুদ্ধে নাম না জানা ১৪ জন শহীদের সারি সারি সমাধি। কোলাহল মুক্ত পরিবেশে আমাদের প্রিয়জনরা ঘুমিয়ে আছেন। দূর থেকে দেখলে মনে হয় আকাশছোঁয়া বৃক্ষ যেন এক একটি প্রহরী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। চারদিকে সবুজ পাহাড়ের গায়ে শত শত বছরের পাথরের কারুকাজ। পাহাড়ের একপাশে ঘন কালো মেঘের অন্ধকার। অন্য পাশে কাঠফাটা রোদ। এ যেন প্রকৃতির এক অনন্য খেলা।

কিভাবে যাবেনঃ
বাঁশতলা স্মৃতিসৌধ যেতে হলে আপনাকে যেতে হবে সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার বাঁশতলায়। সুনামগঞ্জ জেলা সদর থেকে বাঁশতলা যাওয়া যাবে। আবার ছাতক উপজেলা থেকেও বাঁশতলা যাওয়া যাবে। দিনরাত ঢাকা-সিলেট-সুনামগঞ্জ বাস চলাচল করে। সুবিধামতো সময়ে হানিফ, ইউনিক কিংবা শ্যামলী পরিবহনের বাসে চেপে বসলেই হবে।

উপরে