ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮
পেট ব্যাথায় যা করনীয়

শিশুর তীব্র পেট ব্যাথায় যা করনীয়

20fours Desk | আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১১:১১
শিশুর তীব্র পেট ব্যাথায় যা করনীয়

নবজাতক থেকে শুরু করে স্কুলগামী শিশু প্রতিটি শিশুই পেটব্যথায় ভোগে। পেটব্যথা বা পেট কামড়ানো সাধারণ বদহজম ও কৃমি সংক্রমণ থেকে শুরু করে স্কুলগামী শিশুর মানসিক সমস্যার কারণেও হতে পারে। শিশুরা আনুষঙ্গিক সব তথ্য ঠিকমতো ব্যাখ্যা করতে পারে না বলে তাদের পেটব্যথার সঠিক উৎস বা কারণ নির্ণয় করা খানিকটা কঠিনই বটে।যেমন: অন্ত্রে কোনো অবরোধ, হার্নিয়া বা পেরিটোনাইটিস বা গুরুতর সংক্রমণ। তীব্র পেটব্যথা, পেট শক্ত হয়ে যাওয়া, মল বন্ধ হয়ে যাওয়া বা বমি, জ্বর ইত্যাদি সঙ্গে থাকলে দেরি না করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া উচিত। জরুরি অবস্থায় অস্ত্রোপচারও লাগতে পারে। দুই বছরের নিচে শিশুদের সাধারণত কোষ্ঠকাঠিন্য, বদহজম, ডায়রিয়া, খাদ্যে বিষক্রিয়া প্রভৃতি কারণে পেটব্যথা হয়।বড় শিশু ও বালক-বালিকাদের বেলায় এসব ছাড়া অ্যাপেন্ডিসাইটিস, প্রস্রাবে সংক্রমণ, অগ্ন্যাশয় ও যকৃতে কোনো সমস্যা সন্দেহ করা যেতে পারে।

কখন সতর্ক হবেন:

বেশির ভাগ পেটব্যথাই মোটামুটি নির্দোষ ধরনের। শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে প্রচুর শাকসবজি ও আঁশজাতীয় খাবার গ্রহণে উৎসাহী করে তুলুন। ছোট শিশুদের প্রথম খাবারে অভ্যাস করার সময় একেবারে তরল ব্লেন্ড করা খাবার না দিয়ে আধা শক্ত চাল-ডাল-সবজি-মাছ-মাংস মিশ্রিত খাবার দিন। কোনো খাবারে অ্যালার্জি আছে কি না, খেয়াল করুন ও সেটি এড়িয়ে চলুন। খাদ্য প্রস্তুত ও পরিবেশনে পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখুন। শিশুদের হাত ধোয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। তীব্র পেটব্যথা, দীর্ঘ সময় ধরে ব্যথা, বমি, মলের বা বমির সঙ্গে রক্ত, পিত্ত বমি, ওজন হ্রাস ও ব্যথায় অচেতন বা নিস্তেজ হয়ে যেতে থাকলে সতর্ক হন ও দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যান।

করণীয়

ব্যথা কমানোর জন্য নিজে থেকে প্যারাসিটেমল, আইরোপ্রোফেন জাতীয় ওষুধ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া দেবেন না।

টমেটো, লেবুজাতীয় খাবার দেবেন না।

চকোলেট ও অন্যান্য দুগ্ধজাতীয় খাবার বন্ধ রাখতে হবে।

চর্বিযুক্ত ও তৈলাক্ত খাবার বাচ্চাকে কম খাওয়ান।

প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণ পানি খাওয়ান।

অল্প পরিমাণ খাবার বার বার খাওয়ান।

প্রচুর শাকসবজি ও ফলমূল খাওয়ান।

কখন চিকিৎসকের কাছে যাবেন:

বাচ্চার বয়স যদি ৩ মাসের কম হয় ও বাচ্চার যদি ডায়রিয়া ও বমি থাকে।

বাচ্চা যদি ৩ দিনের বেশি সময় পায়খানা না করে ও পেটে ব্যথা থাকে।

যদি রক্ত বমি করে ও পায়খানার সাথে রক্ত যায়।

পেট শক্ত হয়ে গেলে।

২৪ ঘণ্টার মধ্যে পেটব্যথা না কমলে।

পেটব্যথার সাথে যদি ডায়রিয়াসহ জ্বর থাকে।

পেটব্যথা ও শ্বাস নিতে কষ্ট হলে।

উপরে