ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮
পুষ্টিতে ভরপুর রাজমা

পুষ্টিতে ভরপুর রাজমা

20Fours Desk | আপডেট : ২৪ অক্টোবর, ২০১৮ ১৬:২৯
পুষ্টিতে ভরপুর রাজমা

রাজমা আমাদের অনেকের পরিচিত একটি সবজি।এটি আসলে এক ধরনের শিম বীজ। পরিপক্ব রাজমায় প্রচুর প্রোটিন, আমিষ, ফাইবার এবং স্নেহজাতীয় উপাদান রয়েছে। এ ছাড়া এতে আটটি প্রয়োজনীয় অ্যামিনো এসিড আছে। যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এতে থাকা নানারকম ভিটামিন এবং মিনারেল নানাভাবে আমাদের শরীরের অনেক উপকার করে থাকে। দেখতে খুব সাধারণ হলেও এই রাজমা কিন্তু পুষ্টিতে ভরপুর। আসুন জেনে নিই রাজমার পুষ্টিগুণ এবং এর উপকারিতা সম্পর্কে।

পুষ্টিগুণঃ

রাজমা অত্যান্ত পুষ্টিকর একটি সবজি। বিশেষ করে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম এবং আঁশে ভরপুর। দেখা গেছে প্রতি ১০০ গ্রাম রাজমায় প্রোটিন ২৪ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেট ৩.৮৭ গ্রাম, শর্করা ৪৭.৯২ গ্রা্‌ম, আঁশ ১৯.৮ গ্রা্‌ম, ফ্যাট ০.৯ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ১৬২ মিলিগ্রাম পাওয়া যায়। এছাড়াও এতে আছে ভিটামিন বি, রিবোফ্লাবিন, নিয়াসিন, থায়োমিন, প্যান্টোথেনিক এসিড, ফোলেট, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম,ফসফরাস,পটাসিয়ামের মত উপকারি সব খনিজ উপাদান। যা আমাদের শরীরের জন্য ভীষণ প্রয়োজন।

উপকারিতাঃ

১। রাজমা প্রোটিনে ভরপুর। আর প্রোটিন আমাদের শরীরের জন্য ভীষণ উপকারী। এটি আমাদের পেশী গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।প্রতি ১০০ গ্রাম রাজমায় প্রায় ২৪ গ্রাম প্রোটিন আছে। আমাদের শরীরের প্রায় অর্ধেকের ওপর প্রোটিন মাংসপেশী রূপে আছে। খাদ্যে অপরিহার্য এ্যামিনো এ্যাসিডের মাত্রার উপর প্রোটিনের গুণ নির্ভর করে।আমাদের দেহের অস্থি, পেশি, বিভিন্ন দেহযন্ত্র, রক্ত কণিকা থেকে শুরু করে দাঁত, চুল, নখ পর্যন্ত প্রোটিন দিয়ে গঠিত। প্রোটিন শিশুদের দৈহিক বৃদ্ধি সাধন ও দেহ গঠন করে। আমাদের দেহের কোষগুলো প্রতিনিয়তই ক্ষয়প্রাপ্ত হয়। এই ক্ষয়প্রাপ্ত স্থানে নতুন কোষগুলো গঠন করে ক্ষয়পূরণ করতে ও কোনো ক্ষতস্থান সারাতে প্রোটিনের ভূমিকা রয়েছে। আর এই প্রোটিন সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায় রাজমায়।

২। খাবারের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি অংশ ফাইবার বা আঁশ। আর এই ফাইবার আছে রাজমায়। রাজমায় থাকা আঁশ পেটের খাদ্যকণাকে সঠিক পথে চালিত করে ও গতি বজায় রাখে। এছাড়াও ক্যান্সার ও হৃদরোগের বিরুদ্ধে ফাইবার ভূমিকা রাখে। এটি আমাদের এটি পেটের উপকারী ব্যাকটেরিয়াকে উৎসাহিত করে। ফলে আমাদের হজম প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত হয়। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যের মত সমস্যা একদম দূরে থাকে। একই সাথে আঁশ দীর্ঘক্ষণ আমাদের পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে আমাদের আমাদের বার বার ক্ষিদে পায় না। ফলে অতিরিক্ত ওজন বাড়ার কোনো আশংকা থাকে না। আর রাজমা খেলে এসব সমস্যা থেকে নিমেষেই মুক্তি মিলবে।

৩। রাজমায় আছে ভিটামিন ডি কমপ্লেক্স থাকায় এটি আমাদের ত্বক ভালো রাখে। এটি আমাদের ব্রণ দূর করে থাকে। এছাড়াও এতে আয়রন, জিংক ও সেলেনিয়াম থাকায় এটি আমাদের চুলকে শক্তিশালী করে। চুলের ফলিকল মসৃণ করে ও দ্রুত বড় হতে সাহায্য করে রাজমা। নিয়মিত রাজমা খেলে শরীরে জিঙ্ক, ক্যালসিয়াম ও সেলেনিয়ামের মতো উপাদান যুক্ত হয়। এটি হরমোন ও অক্সিজেনের ভারসাম্য রক্ষা করে আমাদের ত্বককে ঠান্ডা করে  এবং ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে সাহায্য করে।

৪। রাজমায় আছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন এ এবং বিটা ক্যারোটিন। যা আমাদের দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটানোর পাশাপাশি নানারকম চোখের সমস্যা কমিয়ে থাকে।একইসাথে গ্লুকোমা সম্পর্কিত বিভিন্ন কমাতেও সাহায্য করে রাজমা। এছাড়াও এতে থাকা ভিটামিন সি আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এছাড়াও এতে থাকা পটাশিয়াম আমাদের কোষ ও রক্তরসের জন্য দরকারি উপাদান হিসেবে কাজ করে। একইসাথে এটি আমাদের হৃৎস্পন্দনকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

৫। রাজমায় আছে ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ফসফরাসের মত উপকারী সব উপাদান থাকায় এটি আমাদের দেহ গঠনে অনেক সাহায্য করে। আমাদের শরীরের হাড় গঠনে এবং হাড়কে মজবুত করতে এসব খনিজ উপাদানের কোনো বিকল্প নেই। এছাড়াও রাজমায় আছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন। আয়রন আমাদের রক্তের হিমোগ্লাবিন বৃদ্ধি করে এছাড়াও আমাদের রক্ত স্বল্পতা বা অ্যামিনিয়া দূর করে।

উপরে