ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯
হ্যাপি মিলটাইমের দশটি টিপস

বাচ্চারা খেতে চায় না, জেনে নিন হ্যাপি মিলটাইমের দশটি টিপস

20fours Desk | আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:৫৮
বাচ্চারা খেতে চায় না, জেনে নিন হ্যাপি মিলটাইমের দশটি টিপস

বাচ্চারা খেতে চায় না এই নিয়ে অভিভাবকদের যত চিন্তা ভাবনা। আর এটা খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার যে বাচ্চারা খাবার নিয়ে অনীহা করে।  তবে অনেক বাচ্চা আছে যারা একদম খেতে চায় না। যেকোন সময় তারা খাবারে অরুচি ভাব দেখায়। জোর করতে গেলে বরং পরিণাম হয় ভয়াবহ তাই অনেকে ডাক্তারের পরামর্শ নেন, বাচ্চারা খেতে চায় না কেন। তবে আপনি কি জানেন বাচ্চাদের জন্য কিছু টিপস ফলো করলে খুব সহজেই বাচ্চাদের খাওয়ার অনাগ্রহ কাটিয়ে খাবারের প্রতি উৎসাহী উঠবে। জেনে নিন বাচ্চাদের হ্যাপি মিলটাইমের দশটি টিপসঃ

১। খাবারে বৈচিত্র্য আনাঃ

একরকম খাবার খেতে ছোট বা বড় কেউই পছন্দ করে না। তাই যেকোন খাবার বাচ্চার যতই পছন্দ হোক না কেন নিউট্রিশান লেভেল ঠিক রেখে আইটেমে ভিন্নতা নিয়ে আসুন। দেখবেন বাচ্চারা অনায়াসে খেয়ে নেবে।

২। জোর করে না খাওয়ানোঃ

বাচ্চাকে জোর করে কিছু খাওয়াবেন না। এতে  করে বাচ্চার খাবারের প্রতি অরুচি আসবে৷ তাই বাচ্চাকে বোঝাতে শেখান কিছু খাবার সবসময়ের আর কিছু মাঝেমাঝে খাওয়ার। নইলে সে নিষিদ্ধ খাবারের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে রেগুলার ডায়েট চার্টে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।

৩। ঠিক সময় খাওয়ানোঃ

বাচ্চারা খুব সহজেই মনোযোগ হারিয়ে ফেলে। তাই খাওয়ার সময় টিভি দেখা বা অন্য কোন কাজে অভ্যস্ত করে ফেলবেন না। এতে ধীরে ধীরে খাবারের প্রতি মনোযোগ হারিয়ে ফেলবে এবং এটাকে কষ্টকর কাজ মনে করবে।

৪। যেটা চায়, সেটাই দেয়াঃ

অনেকসময় বাচ্চারাই নির্দিষ্ট খাবারে আটকে যায়। এটা বেশিদিন থাকেনা, কিন্তু খাবারের পুষ্টিগুণ ঠিক থাকলে সম্ভব হলে সেটাই দিন।

৫। পছন্দ করতে দেয়াঃ

যদি একের অধিক মেন্যু থাকে, তাহলে তার পছন্দমত বেছে নিতে দিন। নিজ থেকে অপশান চাপিয়ে দিবেননা। কিন্তু যদি একটা খাবার ট্রাই করে ভালো না লাগে, তাহলে সেই বেলার জন্য আপাতত জোর করবেন না।

৬। অল্প করে বার বার খাওয়ানোঃ

বাচ্চারা একবারেই পেট ভরে খেতে চায় না৷ তাই ধৈর্য হারা না হয়ে অল্প করে বার বার খাওয়ালে তারা আনন্দের সাথে খেয়ে নিবে।

৭। প্রতিবেলার সময় নির্দিষ্ট করে রাখাঃ

খাবার খাওয়ানোর জন্য সময় নির্দিষ্ট করুন।  এমনভাবে ঠিক করবেন যেন এই সময়টায় বাচ্চা ক্ষুধা বোধ করে কিন্তু ক্লান্ত না হয়। নির্দিষ্ট সময় চাইবার অভ্যাস করুন, তাহলে আর ফিরিয়ে দেবেনা।

৮। খাবার ফিরিয়ে দিলে শান্ত থাকাঃ

বাচ্চাদের খাবার খাওয়াতে গেলে তারা খাবার ফিরিয়ে দিতেই পারে। তাই নিজিকে শান্ত রেখে জোর না করে তাদেরকে বুঝিয়ে খাইয়ে দিন।

৯। মাঝেমাঝে তাকেই খাবার বানাতে দেয়াঃ

খাওয়া দাওয়া বিষয়টায় আনন্দ নিয়ে আসুন। অনেক সময় বাচ্চারা নিজে কোনকিছু বানাতে চায়, তাতে রান্নাঘর এলোমেলো হয়, এটা খুব স্বাভাবিক। সবাই মিলে একসাথে খেতে বসার চেষ্টা করুন।

১০। শিশুর খাবার তার নিজেকেই নিতে দেয়াঃ

বাচ্চা যতটুকু খেতে পারবে আন্দাজ করে নিজের খাবার নিজে নেয়ার অভ্যাস করান। এতে সে ব্যাপারটাকে বোঝা মনে করবে না। টেবিল সাজানো  থেকে শুরু করে প্লেট  ধোয়া পর্যন্ত সবকিছুতে ওর অংশ নিতে দিন। সামগ্রিক ব্যাপারটায় আনন্দের সাথে আগ্রহী করে তুলুন।

উপরে