ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮
শিশুর অনেক জেদ?

শিশুর অনেক জেদ? জেনে নিন থামাবেন যেভাবে।

20fours Desk | আপডেট : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১০:৩৩
শিশুর অনেক জেদ? জেনে নিন থামাবেন যেভাবে।

অনেক সময় দেখা যায় একদম হঠাৎ করেই একটি শিশু ভীষণ কান্না শুরু করে দিয়েছে। আর এই কান্না একসময় এতটাই বেড়ে যায় যে, এটি তার একরকমের জেদে রূপান্তরিত হয়ে যায়। আমরা সকলেই জানি শিশুদের জেদ মানেই অনেক অভিভাবকের কাছে এটি অনেক বিরক্তিকর একটি জিনিস। আর এই জেদ থামাতে যেয়ে তারা হয়তো তাদের ছোট্ট শিশুদের উপর রাগ করে বসছেন। আর এতে কিন্তু শিশুর জেদ কমছে না, বরং আরও বেড়ে যায়। তাহলে শিশুর জেদ থামামোর উপায় কি? শিশু বিশেজ্ঞরা বলছেন, শিশুর জেদ থামাতে হবে খুবই বুঝে শুনে। কখনোই তার উপর রাগ করে নয়। তাহলে আসুন তবে আজ জেনে নিই কিভাবে ছোট্ট শিশুর জেদ থামাবেন, তা সম্পর্কে।

যেভাবে আপনার শিশুর জেদ থামাবেনঃ  

১। শিশুদের কোনো কারণে প্রচন্ড জেদ উঠলে বা রাগ হলে তার কান্না থামানো খুবই কঠিন একটি কাজ। আর এক্ষেত্রেই বেশিরভাগ অভিভাবক সবচেয়ে বড় ভুল করে থাকেন। আর তাহলো শিশুর জেদ বা কান্না থামাতে গিয়ে রাগ করে বসেন এবং শিশুদের ওপর আরও বেশি রাগ হন। আর এতে কিন্তু শিশুর জেদ আরও বেশি বেড়ে যায়। তাই এসময় ধৈর্য ধরে তাকে অনেক বুঝিয়ে, আদর করে তাকে থামাতে হবে। যদি এসময় অস্থির হয় মাথা গরম করে ফেলেন, তাহলেই কিন্তু হিতের বিপরীত হয়ে যাবে।

২। আপনার ছোট্ট শিশু যদি কোনো কিছু করতে চায়, তাহলে তাকে সরাসরি না বলবেন না। যদি সে কাজটিতে কোনো ক্ষতি না হয়ে তাহলে তাকে সে কাজটি করতে দিন। এতে সে খুশি হবে এবং নতুন কিছু শিখতে পারবে। যদি ক্ষতি হয়ে তাহলে সরাসরি না বলবেন না। চেষ্টা করুন তার মনযোগকে অন্যদিকে নিয়ে যাবার।  যদি কোনো কারণে না বলতেই হয়, তাহলে বুঝিয়ে বলুন কেন সেটি করা যাবে না। অনেকসময় না শুনলে তারা বিষয়টি আরও বেশি করে করে থাকে।

৩। ছোট বয়স থেকেই আপনার শিশুর যেকোনো ভালো কাজের প্রশংসা করুন। এতে সে অনেক খুশি হবে। আসলে যত ছোটই হোক না কেন, প্রশংসা করলে সবাই বোঝে। যদি আপনার শিশু কোনো ভালো কাজ করে, তাহলে তার প্রশংসা করুন এবং তাকে আরও বেশি উৎসায়িত করুন। আপনি যে তার কাজে খুশি হয়েছেন তা তাকে বুঝতে দিন।

৪। যদি কোনো কারনে আপনার শিশু অনেকে রেগে যায় বা তার অনেক জেদ হয় তাহলে তার সাথে অস্থির না হয়ে তার রাগ বা জেদের কারণটি বোঝার চেষ্টা করুণ। তার জেদের পেছনে কি কারণ আছে তা বোঝার চেষ্টা করুন। ডায়াপারের অস্বস্তি, পেট ব্যাথা কিংবা শারীরিক সমস্যার কারণেও শিশুরা অনেক সময় অতিরিক্ত জেদি হয়ে উঠে। আবার অনেক সময় দেখা যায় যে, অতিরিক্ত খাবার গ্রহন কিংবা পায়খানার কমবেশি হলেও এরকম হয়ে থাকে।

৫। সবসময় শিশুর সাথে ভালোভাবে মেশার চেষ্টা করুন। তার সাথে গল্প করুন কিংবা খেলা করুন। সে কি খেতে চায় বা কোন জামা পড়তে চায় এরকম বিষয়কে গুরুত্ব দিন। চেষ্টা করুন ছোট থেকে তার মতামত নেওয়ার। যা পরবর্তিতে অনেক বেশি কাজে লাগবে। সে কি খেতে পছন্দ করে চেষ্টা করুন তাকে সেসব খাওয়াতে। শিশুদের সামনে অন্যদের সাথে রাগ কিংবা উঁচু গলায় কথা বলবেন না। তাহলে তা তার জন্য অনেক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলবে।

উপরে