ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮
সবসময় শিশুকে ডায়াপার পরিয়ে রাখেন?

সবসময় শিশুকে ডায়াপার পরিয়ে রাখেন? জানেন তো এরফলে কি হতে পারে?

Desk | আপডেট : ২৪ নভেম্বর, ২০১৮ ০৯:২০
সবসময় শিশুকে ডায়াপার পরিয়ে রাখেন? জানেন তো এরফলে কি হতে পারে?

অনেক সময় দেখা যায় সবসময় শিশুর প্রতি অনেক খেয়াল রাখার পরেও প্রতি রাতেই ঘুম ভেঙে আপনার সোনামণি একনাগাড়ে কাঁদতে থাকে কিংবা কোনো সমস্যা না থাকলেও আপনার শিশুর ঘন ঘন ঠান্ডা লেগে যাচ্ছে। কখনো ভেবে দেখেছেন এর কারণ কি? আসলে এর কারণ হলো ডায়াপার। কি শুনে খুব অবাক হচ্ছেন? আসলে সন্তানের যেকোন বিষয়ে মা-বাবা সব সময় সচেতন। তবুও শিশুর যত্নের কিছু নিয়ম অজানা থাকায় এবং কর্মব্যস্ত জীবনে অভিভাবকদের হাতে সময় কমে যাওয়ায় কিছু ভুলের কারণে এমন হয়ে থাকে। আসলে অনেক মা-বাবা মনে করেন, শিশুকে প্যান্টের ভিতরে ডায়াপার পরিয়ে রাখার মানেই অনেকটা নিশ্চিন্ত থাকা। তাই বাইরে বেরনোর সময় বা সারা দিন পরিশ্রমের পর রাতে একটু নিশ্চিন্তে বিশ্রামের কারণে অনেক মা-বাবাই প্রায় তিন বছর বয়স পর্যন্ত সন্তানকে ডায়াপার পরিয়ে রাখেন। কিন্তু এটি ব্যবহারের সময়, নিয়ম ও পদ্ধতি না জানার কারণে শিশুর অস্বস্তি তো হয়ই, তাছাড়াও শিশুর ত্বকে নানা সমস্যা হয়। এমনকি ভেজা ডায়াপারের কারণে ঠান্ডা লেগে শিশু অসুস্থ্যও হয়ে যেতে পারে। তাই আসুন আজ জেনে নিই শিশুকে ডায়াপার পরানোর ক্ষেত্রে আমাদের কি কি নিয়ম মেনে চলা উচিত তা সম্পর্কে।

ডায়াপার পরানোর সময় আমাদের যেসব নিয়ম মেনে চলতে হবেঃ

১। সবসময় ডায়াপার পরিয়ে রাখতে হবে এমন ধারণা থেকে আমাদের বেড়িয়ে আসতে হবে। ডায়াপার না পরালেই বরং শিশুরা বেশি সুস্থ্য থাকে। সামান্য অসুবিধা হবে এজন্য যেসব মা-বাবা তাদের শিশুকে সবসময় ডায়াপার পরিয়ে রাখেন তাদের এই মানসিকতা একদম পরিহার করতে হবে। তেমন ব্যস্ততা না থাকলে শিশুকে ডায়াপার পরানোর কোনো দরকার নেই।

২। অনেক মা-বাবা তাদের শিশুকে সারারাত ডায়াপার পরিয়ে রাখেন। এটি শিশুদের জন্য অনেক ক্ষতিকর। রাতে এমনিতেই শিশুরা মূত্র বেশি ত্যাগ করে। সারা রাত ওই ভেজা ডায়াপারে শুয়ে থাকলে শিশুর ত্বকে ভেজা ভাব থেকে র‌্যাশ হয়। আর তা থেকেই ঠান্ডা লেগে যায়। এ ছাড়াও মল-মূত্র দীর্ঘক্ষণ শরীরের লেগে থাকলে তা থেকে সংক্রমণ ছড়ায়। তাই রাতে শিশুকে ডায়াপার ছাড়াই ঘুমাতে দেওয়া উচিত।

৩। বাহিরে বেরোনোর সময় শিশুকে ডায়াপার পরালে, কিছু সময় পর পর তা দেখা উচিত। ভিজে গেলেই সাথে সাথে বদলে দিতে হবে। এমনকি যদি শিশু মল-মূত্র ত্যাগ না করে তাহলেও দুইঘণ্টা পর পর ডায়াপার বদলানো উচিত। আসলে এতে মোটা প্যাডিং থাকায় তা শিশুর শরীরকে গরম রাখে এবং নরম চামড়ার উপর চেপে থাকা কাপড়ের ঘষা লেগে শিশুর ত্বকে ক্ষত হতে পারে।

৪। ডায়াপার কেনার আগে অবশ্যই ভাল করে দেখে নিতে হবে এবং অবশ্যই শিশু বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী কিনতে হবে। কেবল সুতি নয়, নরম সুতির কাপড় ছাড়া ডায়াপার না কেনাই ভালো। অন্য ধরনের কাপড়ে ঘসা লেগে শিশুর ত্বক লালচে হয়ে যায়।

৫। খুব দূরের যাত্রাপথ ছাড়া সন্তানকে ডায়াপার না পরানোই ভালো। আসলে এতে কাপড় থেকেও বেশি সংক্রমণ ছড়ায়। তাই চেষ্টা করুন যতটা সম্ভব শিশুর শরীরকে নির্ভার এবং শুকনো রাখতে।

উপরে