ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮
শিশুর ডায়াপার র‍্যাশের কারন ও কাপড়ের ডায়াপারের সুবিধা

শিশুর ডায়াপার র‍্যাশের কারন ও কাপড়ের ডায়াপারের সুবিধা

20fours Desk | আপডেট : ২৩ এপ্রিল, ২০১৮ ১২:৪৪
শিশুর ডায়াপার র‍্যাশের কারন ও কাপড়ের ডায়াপারের সুবিধা

কাপড়ের ডায়াপার হলো এমন একটি ডায়াপার যা বারবার ধোয়া এবং ব্যবহার করা যায়। ডিস্পজেবল ডায়াপারগুলোতে অনেক ধরনের ক্ষতিকর কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় যা শিশুর কোমল ত্বকে র্যাশের কারণ হতে পারে। এদিন বিবেচনায় শিশুর জন্য স্বাস্থ্যসম্মত, ভালো এবং অনেক বেশি সাশ্রয়ী কাপড়ের ডায়াপার।   

বিশেষজ্ঞরা বলেন, কাপড় ডায়াপার ব্যবহারের প্রধান সুবিধাই হলো এগুলো প্রাকৃতিকভাবে তৈরি এবং অনেক নরম। পাশাপাশি এসব ডায়াপারের শোষণ ক্ষমতাও অনেক বেশি। এ কারণে শিশুরা বার বার ডায়াপার ভিজিয়ে ফেললেও পরের পরিবর্তন পর্যন্ত তা শিশুর ত্বক শুষ্ক রাখতে সাহায্য করে।

কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহারের আরও নানা সুবিধা তুলে ধরা হলো:

পরিবর্তনের সুবিধাঃ

প্রাকৃতিকভাবে কাপড়ের ডায়াপার অনেক নরম হয়। শিশুদের প্রস্রাবে ভিজে গেলে এটি তৎক্ষণাৎ পরিবর্তনও করা যায়। তাই পরিবর্তনের সুবিধার জন্যই কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহার করা ভালো।  তবে যেসব শিশুর কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহারে ফুসকুড়ি উঠে তাদের এটি এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।  

পটি প্রশিক্ষণঃ

কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহার করার আরেকটি সুবিধা হলো পটি প্রশিক্ষণ। এটি ব্যবহারে শিশুরা সহজেই তার ব্যবহৃত জিনিস চিনে ফেলে। ফলে পরনের কাপড় ভিজে গেলে শিশুরা কাঁদতে শুরু করে। এভাবে কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহার করে ছোটবেলা থেকেই শিশুদের সহজেই পটি প্রশিক্ষণ দেওয়া সহজ হয়।    

অর্থের সাশ্রয়ঃ

শিশুরা বার বার কাপড় ভিজিয়ে ফেললে তা পরিবর্তনের দরকার পড়ে। এজন্য বাজারে থেকে কেনা ডায়াপার ব্যবহারে খরচ অনেক বেশি পড়ে। এ ক্ষেত্রে কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহারে অর্থের সাশ্রয় হয়। তাই এটি ব্যবহার করা ভালো।

সংবেদনশীল ত্বকের জন্যঃ

শিশুদের ত্বক অনেক বেশি সংবেদনশীল হয়। এ ক্ষেত্রে চুলকানি, ফুসকুড়িসহ ত্বকের যে কোনো সমস্যা এড়াতে তাদের প্রথম পছন্দ হতে পারে কাপড়ের ডায়াপার। এটি ব্যবহারের অন্যতম সুবিধা হলো এটি নিরাপদে শিশুদের আবৃত করে রাখে। ফলে শিশুদের ত্বকে অ্যালার্জির সংক্রমণের সম্ভাবনা একেবারে থাকে না।   

পুনরায় ব্যবহারযোগ্যঃ

কাপড়ের ডায়াপার পুনরায় ব্যবহার করা যায়। সেগুলো ভালো করে পরিষ্কার করে শুকিয়ে যতদিন ইচ্ছা আপনি ব্যবহার করতে পারেন।    

কেমিক্যাল নেইঃ

ডিস্পজেবল ডায়াপারগুলোতে অনেক ধরনের ক্ষতিকর কেমিক্যাল থাকে। অন্যদিকে কেমিক্যাল মুক্ত হওয়ায় কাপড়ের ডায়াপার শিশুদের ত্বকের জন্য অনেক ভালো।

ওজন কমঃ

কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহারের সুবিধা হলো এটি নরম উপাদানে তৈরি। এ ছাড়া এগুলো তুলনামূলকভাবেও অনেক হালকা হয়।    

স্বাস্থ্যগত কারণেঃ

গবেষণায় দেখা গেছে, বাজারের কেনা ডায়াপারগুলোতে কেমিক্যাল থাকায় তা শিশুদের শরীরে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। এতে করে শিশুদের অ্যাজমার সমস্যা হতে পারে। তাই স্বাস্থ্য সমস্যার সমাধানে কাপড়ের ডায়াপার ব্যবহার করা ভালো। এটি শ্বাসপ্রশ্বাসজনিত যেকোনো সমস্যা থেকে শিশুদের মুক্তি দেয়।    

আরামদায়কঃ

শিশুদের ত্বকের যেকোনো সমস্যা কমিয়ে আনে কাপড়ের ডায়াপার। আবার নরম হওয়ায় তা পরেও শিশুরা আরাম বোধ করে।


শিশুর ডায়াপার র‍্যাশ কেন হয়?

ডায়াপার র‍্যাশ একটি নতুন খাবার থেকে শুরু করে আপনার শিশুর নিজের প্রস্রাবের কারনেও হতে পারে।

সম্ভাব্য কারনগুলো হলো:

ভেজা ভাবঃ  সবচেয়ে বেশি ভেজাভাব শোষণ করতে পারে যে ডায়াপারটি, সেটিও আপনার শিশুর ত্বকে কিছুটা আর্দ্রতা রেখে যায়। এবং যখন আপনার শিশুর মুত্র তার মলের জীবানুর সাথে মেশে তখন তা অ্যামোনিয়া তে রুপ নেয় যা কিনা ত্বকের জন্য খুব কঠিন হয়ে উঠতে পারে। এ কারনে যেসব শিশুদের ঘনঘন পেটের সমস্যা হয় তারাই ডায়াপার র‍্যাশের প্রবনতায় আক্রান্ত হয়। যদিও বাচ্চার ভেজা ডায়াপার অনেক্ষন পরে থাকলে র‍্যাশ, হয় তবে যে সব বাচ্চার সেনসিটিভ স্কিন তাদের ক্ষেত্রে বার বার ডায়াপার পরিবর্তন করার পরেও এ সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ডায়াপারে ঘষা লাগা এবং ক্যামিকেল সেন্সিটিভিটিঃ  ডায়পারের ঘষা লাগা থেকেও শিশুর ত্বকে র‍্যাশ দেখা দিতে পারে। ডিস্পোজেবল ডায়াপারে যে সুগন্ধি ব্যাবহার করা হয় তার কারণে অথবা কাপড়ের ডায়াপার ধোয়ার জন্য যে ডিটরিজেন্ট ব্যবহার করা হয়ে থাকে তার প্রতি যদি বাচ্চার ত্বক সংবেদনশীল হয় তবে ডায়াপার র‍্যাশ দেখা দিতে পারে। আপনি ডায়াপার পড়াবার সময় যে লোশন বা পাউডার ব্যবহার করছেন তাও হয়তোবা তার ত্বকে সহ্য হচ্ছে না।

নতুন খাবারঃ  শিশুকে প্রথমবারের মতো শক্ত খাবার দেওয়া হলে এবং খাবারের তালিকায় পরিবর্তন আনলে শিশুর মলেও পরিবর্তন আসে। একই সঙ্গে শিশুর মলত্যাগের পরিমাণ বাড়তে থাকে। এর ফলে ডায়াপার র‍্যাশও হতে পারে।একটি নতুন ধরনের খাবার হয়তো আপনার শিশুর পেটের সমস্যার মাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে। যেসব মা শিশুদের বুকের দুধ খাওয়ান, তাঁরা নির্দিষ্ট কিছু খাবার খেলেও শিশুর ডায়াপার র‍্যাশ হতে পারে।

ব্যাকটেরিয়া বা ইস্ট ইনফেকশনঃ  ডায়াপার পরানোর জায়গাটি গরম ও আর্দ্রতাপূর্ন থাকে – ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাক এরকম জায়গাই বিস্তার লাভ করে। শিশুর দেহের যেটুকু অংশ ডায়াপার দ্বারা ঢাকা থাকে, বিশেষ করে নিতম্ব, ঊরু ও জননাঙ্গে সহজে বাতাস চলাচল করতে পারে না। এসব স্থানে খুব সহজে সংক্রমণ হয় এবং শিশুর ত্বকের ভাঁজে লাল লাল গুটির মতো র‍্যাশ দেখা দেয়। সেবোরিয়া হলো এক ধরনের তৈলাক্ত ও হলুদ বর্ণের র‍্যাশ, যা সাধারণত মুখমণ্ডল, ঘাড় ও মাথায় হয়ে থাকে। এর ফলেও শিশুর ডায়াপার র‍্যাশ হতে পারে।ব্যাকটেরিয়া বা ছত্রাকের সংক্রমণ ত্বকের কোনো অংশে হলে তা ধীরে ধীরে ছড়াতে থাকে।

 

উপরে