কমলালেবু খাওয়ার উপকারীতা | 20fours
logo
আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২২:৩২
কমলালেবু খাওয়া
কমলালেবু খাওয়ার উপকারীতা
20Fours Desk

কমলালেবু খাওয়ার উপকারীতা

কমলা এক প্রকারের লেবু জাতীয় রসালো ফল। কমলা একটি জনপ্রিয় ফল। এটি সরাসরি খাওয়া হয় এবং ফ্রুট সালাদে ব্যবহৃত হয়।কমলায় বিটা ক্যারোটিন ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে। এর রসে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও ক্যালসিয়াম এবং এর পাতলা ত্বকে আঁশ রয়েছে। শীত কাল মানেই কমলা লেবু। এই ফল যেমন সুস্বাদু, তেমনই স্বাস্থ্যের জন্যও অত্যন্ত পুষ্টিকর। সুস্থ থাকতে তাই চিকিত্সকরা শীতকালে রোজ কমলা লেবু খাওয়ার পরামর্শ দেন।  আর আজকের লেখাতে থাকছে আপনাদের জন্য শীতকালে কমলা লেবু খাওয়ার উপকারীতা গুলো।

 চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক শীতকালে কমলা লেবু খাওয়ার উপকারীতা গুলোঃ

(১) শীত মানেই ত্বকের আর্দ্রতা কমে যাওয়া। সেই সঙ্গে সৌন্দর্য্য কমে যাওয়া যেন খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। তাই তো এই সময় সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে ত্বকের আলাদা করে খেয়াল রাখে কমলা লেবু। কারণ নিয়মিত এই সাইট্রাস ফলটি খেলে শরীরে ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের মাত্রা বাড়তে শুরু করে। ফলে একদিকে যেমন ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকে, তেমনি অন্যদিকে বলিরেখা কমতে শুরু করে, কালো ছোপ দাগ মিলিয়ে যায় এবং ত্বক তুলতুলে হয়ে ওঠে। এক কথায় শীতের মরসুমে ত্বকের পরিচর্যায় কমলা লেবুর কোনো বিকল্প হয় না বললেই চলে।

(২) শীতকালে খেয়াল করে দেখবেন জয়েন্ট পেইনের কারণে ভোগান্তি খুব বেড়ে যায়। কারণ এই সময় দেহের ভেতরে প্রদাহ বা ইনফ্লেমেশন মাত্রা ছাড়ায়, যে কারণে এমন পরিস্থিতি মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে। এক্ষেত্রেও কিন্তু কমলা লেবু আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

(৩) শীত মানেই ভুরিভোজ। শীত মানেই পিকনিক। আর শীত মানেই ২৫ এবং ৩১ ডিসেম্বরের উত্তাল পার্টি। ফলে এই সময় ওজন বেড়ে যাওয়াটা একেবারেই অস্বাভাবিক ঘটনা নয়। এমন পরিস্থিতিতে যদি প্রতিদিন একটি করে কমলা লেবু খেতে পারেন, তাহলে ওজন বাড়ার চিন্তা থেকে কিন্তু মুক্তি মিলতে পারে!

(৪) কমলা লেবুতে উপস্থিত ভিটামিন সি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যাসকর্বিক অ্যাসিড এবং বিটা-ক্যারোটিন শরীরে প্রবেশ করার পর রোগ প্রতিরোধী ব্যবস্থাকে এতটাই শক্তিশালী করে তোলে যে ছোট-বড় কোনো রোগই ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না। সেই সঙ্গে নানা ধরনের সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়।

(৫)এছাড়া  নানা কারণে রাত্রে ঠিক মতো ঘুম হয় না? সেই সঙ্গে ক্লান্তিও যেন বাধ ভেঙেছে? এ কারণেই রোজকার ডায়েটে কমলা লেবু থাকা অনিবার্য! কারণ এই ফলটির শরীরে থাকা ফ্লেবোনয়েড, বেশ কিছু নিউরোট্রান্সমিটারকে অ্যাকটিভ করে দেয়। এতে একদিকে যেমন অনিদ্রার সমস্যা দূর করে, তেমনি স্মৃতিশক্তি এবং কগনিটিভ পাওয়ার বাড়াতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

শীতের আবহাওয়া শুষ্ক, ধুলাবালির মাত্রাটাও কিছুটা বেড়ে যাওয়ায় দেখা দেয় নানা স্বাস্থ্যসমস্যা। শীতের শুরুতেই জ্বর, সর্দি ও কাশি যেন আঁকড়ে ধরে। তাই এ সময় শরীরটাকে সুস্থ রাখতে হলে আবহাওয়া বদলের এ মৌসুমে নিয়মিত কয়েক কোয়া কমলা লেবু খেতে পারেন এবং শীতেও থাকতে পারেন সুস্থ এবং চাঙ্গা।