পাইলস নিরাময়ে যা খাবেন। | 20fours
logo
আপডেট : ৪ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:২০
পাইলস নিরাময়
পাইলস নিরাময়ে যা খাবেন।
20fours Desk

পাইলস নিরাময়ে যা খাবেন।

অনেক কষ্টকর এবং জটিল রোগগুলোর মধ্যে একটি হলো অর্শ বা পাইলস। এটি মূলত মানুষের মলদ্বারের একটি রোগ। এ রোগের ফলে মলদ্বারের ভেতরে বা বাইরে, চারপাশে বা একপাশে, একটি বা একাধিক, গোলাকৃতি বা সুচাল গুটিকা দেখা দেয়। এ গুটিকাগুলোকে ‘বলি’বা ‘গেজ’ বলা হয়। সাধারণত কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের সমস্যা, দীর্ঘ মেয়াদী কাশির সমস্যা, প্রস্রাবে বাধা, গর্ভধারণ, মলদ্বারে ক্যানসার, নিয়মিত দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকা এসব থেকে পাইলসের সমস্যা হতে পারে।পাইলসের চিকিৎসা না করা হলে প্রায়ই মলের সাথে রক্তপাতের ফলে ধীরে ধীরে রক্তশূন্যতা হতে পারে, প্রায়ই ব্যথা হয় এবং সংক্রমণ হয়। পাইলসের চিকিৎসার জন্য নানা ধরণের চিকিৎসা রয়েছে। সমস্যা কতটা গভীর তার উপরও চিকিৎসা পদ্ধতি নির্ভর করে। কখনও শুধু ওষুধেই কাজ দেয়, কখনও আবার সমস্যা এতটাই বেড়ে যায় যে অস্ত্রোপচার ছাড়া আর কোনও উপায় থাকে না। তবে পাইলসের সমস্যায় কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চললে এবং কিছু খাবার গ্রহন করলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি মেলে। আসুন জেনে নিই কোন কোন খাবার খেলে আমরা পাইলসের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারি।

যেসব খাবার পাইলস নিরাময়ে অত্যন্ত উপকারিঃ

১। কাঁচা পেঁয়াজ:

পাইলসের সমস্যায় যেসব প্রাকৃতিক উপাদান আমাদের সবচেয়ে বেশি উপকার করে থাকে তার মধ্যে অন্যতম হলো কাঁচা পেয়াজ। বিশেষ করে অনেক সময় পাইলসের সমস্যার কারণে অনেকের মলদ্বার দিয়ে রক্ত নির্গত হওয়ার মত কষ্টকর সমস্যা হয়ে থাকে। আর এই সমস্যা নিমিষেই দূর করতে পারে কাঁচা পেয়াজ। একই সাথে এটি আমাদের অন্ত্রের যন্ত্রণা প্রশমিত করে। এজন্য প্রতিবেলা খাওয়ার সময় ১টি বা ২টি করে কাঁচা পেয়াজ খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। এতে এই সমস্যা ধীরে ধীরে কমতে শুরু করবে, আর আপনিও এই কষ্টকর যন্ত্রণা থেকে মুক্তি লাভ করবেন।

২। ডুমুর:

ডুমুরকে বলা হয় সবচেয়ে শক্তিশালী ফল। এটি আমাদের বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা নিরাময়ে আসাধারণ কাজ করে। আর এর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হলো অশ্ব বা পাইলসের মত সমস্যা। এই ফলে থাকা বিশেষ কিছু উপাদান এই সমস্যা নিরাময়ে অসাধারণ কাজ করে। এজন্য শুকনো ডুমুর বা ফিগ ১ গ্লাস পানি সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে এই অর্ধেক পানি খেয়ে নিন এবং আবার বিকেলে বাকি অর্ধেক পানি খেয়ে নিন। নিয়মিত এভাবে খেতে থাকলে ধীরে ধীরে পাইলসের সমস্যা ভালো হয়ে যাবে।

৩। ডালিমঃ

আশ্ব বা পাইলসের সমস্যায় বেদানা বা ডালিম কিন্তু ভীষন উপকারি। এতে থাকা বিশেষ কিছু উপকারি উপাদান পাইলসের সমস্যায় দারূন কাজ করে। আর এজন্য ডালিমের দানা একটি পাত্রে নিয়ে তে পানি মিশিয়ে ভালো করে ফোটাতে হবে এবং ততক্ষন পর্যন্ত ফোটাতে হবে যতক্ষন পর্যন্ত ডালিমের দানা এবং পানির রং পরিবর্তন হয়। যখন ডালিমের দানা এবং পানির রং পরিবর্তন হবে তখন এই পানি ছেঁকে রেখে দিন। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এবং রাতে ঘুমানোর আগে এই পানি খেতে হবে। তাহলেই আস্তে আস্তে অশ্ব বা পাইলসের কষ্টকর এই সমস্যা একদম কমে যায়।

৪। আদা ও লেবুর রস:

অশ্ব বা পাইলসের অন্যতম কারণ হলো ডিহাইড্রেশন। আর এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো উপকার করতে পারে আদা, লেবুর রস এবং মধু। এই তিনটি উপাদান একসাথে খেলে আমাদের ডিহাইড্রেশন কমে যাবে। আর এতেই কমে আসবে পাইলসের মত সমস্যা। এজন্য একটুকরো আদা কুঁচির সাথে এক চামচ লেবুর রস এবং মধু ভালোভাবে মিশিয়ে দিনে দুইবার খেতে হবে। এতে আমাদের শরীর হাইড্রেট হবে এবং পাইলসের সমস্যা আস্তে আস্তে কমে আসবে।

৫। হলুদ:

পাইলসের মত কষ্টকর সমস্যা সমাধানে কাঁচা হলুদ অনেক কার্যকর একটি প্রাকৃতিক উপাদান। এজন্য কাঁচা হলুদ এবং পানি একটি পাত্রে নিয়ে ভালো করে ফোটাতে হবে। তারপর এই কাঁচা হলুদ ফোটানো পানি প্রতিদিন সকালে খালিপেটে এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস করে খেতে হবে। নিয়মিত এই পানীয়ও পান করলে ধীরে ধীরে পাইলসের সমস্যা কম হয়ে যাবে।

এছাড়াও পাইলস যেন না হয় এজন্য নিয়মিত ঘুমানো, পরিমাণ মতো পানি পান করা, অতিরিক্ত পরিশ্রম না করা, তরলও সহজপাচ্য খাদ্য গ্রহণ, অধিক মশলা জাতীয় খাদ্য পরিহার করা উচিত। আমাদের মনে রাখতে হবে যে, পাইলস একটি দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা। এটি রাতারাতি চিকিৎসার মাধ্যমে ভালো সম্ভব ন্য। তাই নিয়ম মেনে চললে এবং সঠিক খাবার গ্রহন করলে ধীরে ধীরে এই সমস্যা দূর হয়ে যাবে।