চোখের প্রসাধনী ব্যবহারের নিয়মাবলী | 20fours
logo
আপডেট : ১৩ অক্টোবর, ২০১৮ ১৩:৫৭
চোখের প্রসাধনী ব্যবহারের নিয়মাবলী
চোখের প্রসাধনী ব্যবহারের নিয়মাবলী
20fours Desk

চোখের প্রসাধনী ব্যবহারের নিয়মাবলী

চোখ আমাদের সবচেয়ে বড় সম্পদ। এর মাধ্যমেই আমরা সবকিছু দেখতে পারি। এর মাধ্যমে যে সবকিছু দেখতে পাই শুধু তাই নয়, এটি আমাদের সৌন্দর্যের একটি অংশ। চোখের মাধ্যমে একজন নারী তার সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলে। আর এজন্য নারীরা চোখে নানারকমের প্রসাধনী ব্যবহার করে থাকন। এখন সবথেকে বড় প্রশ্ন হলো এসব প্রসাধনী কি আমাদের চোখের কোনো ক্ষতি করে? এসব ব্যবহার করা কি আদৌও কি ঠিক? এর উত্তর হলো সাধারণত এসব প্রসাধনী আমাদের চোখের কোনো ক্ষতি করে না, যাদি আমরা সঠিক নিয়ম মেনে এসব ব্যবহার করে থাকি। আর এসব প্রসাধ্নী ব্যবহার করতে হলে আমদের যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। এই যেমন,আই পেনসিল, কাজল বা মাসকারা লাগাতে গিয়ে চোখের কর্নিয়ায় আঘাত লাগে।চলন্ত গাড়িতে, ভিড়ের মধ্যে এসব চোখে এসব প্রসাধনী ব্যবহার করা যাবে না।এতে করে চোখের কর্নিয়ায় আঘাত, কনজাংটিভায় প্রদাহ, অ্যালার্জি, সংক্রমণ ইত্যাদি হতে পারে।এছাড়াও চোখে প্রসাধনী ব্যবহার করতে আমাদের কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে। আসুন জেনে নিই চোখে প্রসাধনী ব্যবহারের ক্ষেত্রে যেসব নিয়ম মেনে চলতে হবে।

১। চোখের পাতার ভেতরে যা লাগানো হয় তা তিন থেকে ছয় মাস ব্যবহার করা নিরাপদ।তাই নিয়মিত চোখের প্রসাধনী পরিবর্তন করুন।

২। যেকোনো প্রসাধনীর মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ লক্ষ করুন। মেয়াদোত্তীর্ণ প্রসাধনী কখনোই ব্যবহার করবেন না।

৩। চেখে কোনো প্রসাধনী ব্যবহারের পরে যদি অস্বস্তি বোধ করেন বা কোনো সমস্যা হলে অবশ্যই তা ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

৪। কখনোই অন্যের ব্যবহৃত প্রসাধনী ব্যবহার করবেন না। বিশেষ করে যেগুলো চোখের পাতার ভেতরের দিকে ব্যবহার করা হয়।

৫। চোখের প্রসাধনী দিন শেষে অবশ্যই পরিষ্কার করে নিতে হবে। সাধারণত চোখের প্রসাধনী তোলার জন্য আলাদা ক্লিনজার বা রিমুভার ব্যবহৃত হয়। প্রসাধনী নিয়ে কখনোই মুখ-চোখ ধোয়া উচিত নয়।

৬।  চোখের কোনো রকম সংক্রমণের পর আগের প্রসাধনীগুলো পরিবর্তন করে ফেলাই ভালো। একইসাথে চোখে কোনো চিকিৎসা চলাকালে বা ওষুধ গ্রহনকালে চোখে প্রসাধনী ব্যবহার করা একদমই যাবে।

বেশির ভাগ ক্ষেত্রে চোখের কনজাংটিভার প্রদাহ ভাইরাস বা অ্যালার্জিজনিত। তাই এসব ব্যাপারে আমাদের সাবধান থাকতে হবে। কোনো প্রসাধনীর কোনো বিশেষ উপাদানে সংবেদনশীলতা থাকতে পারে।  তবে প্রদাহে আক্রান্ত হওয়ার সময় চোখের যেকোনো প্রসাধনী ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।