ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮
ঢাকার প্রথম সিনেমা হল

ক্রাউন থিয়েটার মঞ্চ থেকে শাবিস্তান

| আপডেট : ৯ নভেম্বর, ২০১৭ ১২:৪৯
ক্রাউন থিয়েটার মঞ্চ  থেকে শাবিস্তান

ক্রাউন থিয়েটার ১৮৯০ থেকে ১৮৯২ সালের মধ্যে কোনও এক সময় পুরান ঢাকার নবাব বাড়ির সন্নিকটে প্রতিষ্ঠিত হয়। এখানে প্রথমে ছিল ‘পূর্ববঙ্গ রঙ্গভূমি’ নাট্যগোষ্ঠীর মঞ্চ; কিন্তু এই গোষ্ঠীর কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেলে  ক্রাউন থিয়েটার সেটি ভেঙ্গে নতুন করে মঞ্চ নির্মাণ করে। স্থানীয় বাসিন্দাদের আপত্তির কারণে মঞ্চটি এক সময় পাটুয়াটুলীতে স্থানান্তরিত হয়।

এই ক্রাউন থিয়েটারেই ১৮৯৮ সালের ১৭ এপ্রিল ঢাকায় প্রথম বায়স্কোপ দেখানো হলো। বেডফোর্ড বায়োস্কোপ কোম্পানি ছিল এর আয়োজক। বায়োস্কোপে কাহিনি বলে কিছু থাকত না। ঢাকাতে তখন দেখানো হতো মহারানী ভিক্টোরিয়ার সিংহাসন আরোহণের হীরক জয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত শোভাযাত্রার দৃশ্য,  গ্রিস-তুরস্ক যুদ্ধের কিছু দৃশ্য, রাশিয়ার জারের অভিষেক, ব্রিটেনের রাস্তায় তুষারপাত, ফ্রান্সের পাতাল রেল ইত্যাদি। এছাড়া নামকরা সার্কাসের কিছু কিছু খেলা এবং ‘ক্ষ্যাপাটে নাপিতের দাড়ি কামানোর’ মতো কিছু হাসির দৃশ্যও দেখানো হতো। প্রবেশ মূল্য ছিল আট আনা থেকে তিন টাকা। বায়োস্কোপের লোকেরা তাদের সরঞ্জামাদি নিয়ে ক্রাউন থিয়েটার ছাড়াও বিভিন্ন স্থানে ঘুরে ঘুরে প্রদর্শন করে বেড়াত। রেডিও, টেলিভিশন, মোবাইল ফোন, ইন্টারনেটবিহীন সেই দিনগুলোতে বায়োস্কোপ দেখে আহসান মঞ্জিল, জগন্নাথ কলেজ ও ভিক্টোরিয়া পার্কেও (বর্তমান বাহাদুর শাহ পার্ক) বায়োস্কোপ দেখানোর ব্যবস্থা করা হয়েছিল। ঢাকার বাইরেও বিভিন্ন স্থানে বায়োস্কোপ দেখানোর ব্যবস্থা করা হয়। ১৮৯৭ সালে ‘ডায়মন্ড জুবিলি থিয়েটার’ প্রতিষ্ঠিত হলে ক্রাউন থিয়েটারের কতিপয় অভিনেতা-অভিনেত্রী সেখানে যোগ দেন এবং এর ফলে ক্রাউনের কর্মকান্ড ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কিছুকাল পরে ক্রাউন থিয়েটার চলচ্চিত্র প্রদর্শন শুরু করলে নাট্যমঞ্চ হিসেবে এর অস্তিত্ব বিলুপ্ত হয়ে যায়।

১৯১৩-১৪ সালে ঢাকাতে  নিয়মিত বায়োস্কোপ দেখানো হতো আরমানিটোলার এক গোডাউনে। এরপর পিকচার হাউস নামে সেখানেই প্রেক্ষাগৃহ নির্মাণপূর্বক স্থায়ীভাবে বায়োস্কোপ দেখানো শুরু হয়। পরে এই পিকচার হাউসের নাম হয় ‘শাবিস্তান’—ঢাকার প্রথম সিনেমা হল। বর্তমানে এটিও নেই।

সূত্রঃ বাংলাপেডিয়া এবং দৈনিক ইত্তেফাক, ২৫ এপ্রিল ২০১৫

উপরে