ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯
অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণে রাখা

শীত মৌসুমে অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণে রাখার উপায়

20fours Desk | আপডেট : ৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০৫
শীত মৌসুমে অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণে রাখার উপায়

অ্যাজমা একটি দীর্ঘমেয়াদী রোগ যার মূল লক্ষণ হল শ্বাস কষ্ট ও সাঁসাঁ শব্দে নিঃশ্বাস ফেলা। অ্যাজমা আক্রমণের সময় শ্বাসনালীর আস্তরণ ফুলে যায়, যার ফলে শ্বাসনালী এতটাই সংকীর্ণ হয়ে যায় যে প্রশ্বাস ও নি:শ্বাসে শ্বাসবায়ুর গতি অনেকটাই কমে যায়। অ্যাজমা কারণ এখনো পুরোটা বোঝা যায়নি। তবুও অ্যালার্জি, তামাকের ধোঁয়া ও রাসায়নিক উত্তেজক পদার্থে হাঁপানি ক্রমশ: বৃদ্ধি পায় ও এগুলোকে অ্যাজমা রোগের মূল কারণ হিসেবে ধরা হয়।আবহাওয়া পরিবর্তনের এ সময়টাতে বক্ষব্যাধি রোগীদের ব্যাপারে যথেষ্ট সতর্ক থাকতে হয়। যাদের অ্যাজমার সমস্যা আছে, শীতকালে তাদের বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হয়। সে অর্থে অ্যাজমার প্রতিকার নেই তবে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। আর তাই আজকের লেখাতে থাকছে আপনাদের জন্য শীত মৌসুমে অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণে রাখার উপায়।

চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক শীত মৌসুমে অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণে রাখার উপায়ঃ

(১) ফুলের ঘ্রাণ কে না পছন্দ করে। অনেকে এর সুমিষ্ট ঘ্রাণে পাগলপারা হয়ে যায়। সকাল-বিকেল এর নির্মল ঘ্রাণে মন ব্যাকুল হয়ে ওঠে। তবুও শীত মৌসুমে এর ঘ্রাণ আপনার-আমার জন্য সমস্যা হতে পারে। বিশেষ করে অ্যাজমাজনিত সমস্যা থাকলে। তাই ফুলের ঘ্রাণ ও বাড়ন্ত গাছের পাতার গন্ধ যতটুকু পারা যায় এড়িয়ে চলুন।

(২) অনেকেই জানেন না নিয়মিত ব্যায়ামে অ্যাজমা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। তাই এ মৌসুমে যতটুকু সম্ভব ব্যায়ামের ওপর জোর দিতে হবে।

(৩) এটি এড়াতে পারলে শুধু অ্যাজমা নয়, শীত মৌসুমে আরও অনেক রোগের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। বিশেষ করে ধূমপান পরিহারে কাশিকে বাই বাই বলা যায়। শিশুর শারীরিক সুস্থ্যতার জন্যও এটি গুরুত্বপূর্ণ।

(৪) অ্যাজমার ভীষণ শত্রু এটি। তাই পারতপক্ষে চেষ্টা করতে হবে তা এড়িয়ে চলার। চেষ্টা করতে হবে সুষ্ঠু, সুন্দর, নির্মল পরিবেশে চলাফেরা করার। যতোটুকু পারা যায়, থাকা-শোবার ঘরটি রাখতে হবে ধুলাবালি মুক্ত।

(৫) শীত মৌসুমে আমরা অনেক সময় ঠাণ্ডার হাত থেকে রক্ষা পেতে এসি বাড়িয়ে দিই। তবে অ্যাজমা রোগীদের জন্য এটি মোটেই সুখকর নয়। আবার অতিরিক্ত ঠাণ্ডা থেকে বাঁচতে উষ্ণতার জন্য বেশি গরম কাপড়চোপড় পরি। এতে দেখা যায়, অল্পক্ষণে শরীর গরমে ঘেমে যায়। ফলে গায়ের জামাকাপড় খুলে ফেলি। এটিও অ্যাজমা রোগীদের জন্য ভাল নয়। এসবে হিতে-বিপরীত ঘটে। তাই যতদূর সম্ভব এ থেকে দূরে থাকুন।

এখন যেহেতু জেনে গেলেন অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণের উপায় তাহলে এই শীতে আর অ্যাজমা সমস্যা না এই পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করুন এবং অ্যাজমা সমস্যা দূরে রাখুন।

উপরে