ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮
শীতের ব্যায়াম

জেনে নিন শীতের ব্যায়াম সম্বন্ধে

20fours Desk | আপডেট : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১০:৩৬
জেনে নিন শীতের ব্যায়াম সম্বন্ধে

শীতের দিনে শরীরে শক্তি সঞ্চিত থাকে বেশি। তাই ব্যায়াম করার খুব ভালো সময় এটা। ব্যায়ামে শীতের জড়তা, আলসেমি কেটে যায়, কাজকর্মেও গতি ফিরে আসে। অন্যদিকে ব্যায়াম শরীরের রোগ প্রতিরোধব্যবস্থাকে চাঙা রাখে। তাই ব্যায়াম করলে শীতের সর্দি-কাশি, জ্বরের মতো রোগবালাই আর সহজে কাবু করতে পারে না শরীরকে। তাই শীতটাকে উপভোগ করতে চাইলে ব্যায়ামের বিকল্প নেই। আজকাল করেও যা করা হচ্ছে না এই মৌসুম থেকেই এটি শুরু করুন। শরীর সুস্থ তো মনটাও হবে ফুরফুরে। আপনি চাইলে বাসাতেই হালকা ব্যায়ামের অভ্যাস করতে পারেন। শরীর সুস্থ তো মনটাও হবে ফুরফুরে। আপনি চাইলে বাসাতেই হালকা ব্যায়ামের অভ্যাস করতে পারেন। আর ব্যায়ামাগারে গিয়ে নিয়মিত ব্যায়াম করতে পারলে আরও ভালো হয়। আর আজকের লেখাতে থাকছে শীতের ব্যায়াম সম্বন্ধে কিছু তথ্য।

চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক  শীতের ব্যায়াম সম্বন্ধেঃ

(১) হালকা শীতের এই সময়ে ব্যায়াম করার সময় সুতির ফুলহাতা টি-শার্ট পরা ভালো, সঙ্গে ট্রাউজার। ব্যায়ামের সময় কেডস পরে নিন। শরীর উষ্ণ রেখে ব্যায়ামের উপযোগী রাখবে এগুলো। ব্যায়ামাগারে আসার আগে শরীরে অলিভ অয়েল মেখে নিলে শরীর উষ্ণ হবে তাড়াতাড়ি। সঙ্গে জলের বোতল আর তোয়ালে। বোতলে অল্প চিনি মিশিয়ে নিতে পারেন।

(২) ব্যায়ামাগারে শারীরিক পরিশ্রমে শরীর থেকে যে ক্যালরি হারাবে, তার খানিকটা পুষিয়ে দেবে চিনি। নিয়মিত যারা ব্যায়াম করেন, তাদের পানি খেতে হবে প্রচুর। ব্যায়াম শেষে স্টিম বাথ নেওয়া যেতে পারে, এতে লোমকূপে জমে থাকা ময়লা দূর হবে।

(৩) যদি আপনি  মেদ ঝরাতে চান তাদের মনে রাখতে হবে, খালি পেটে ব্যায়াম করা যাবে না কখনোই। সকালে ব্যায়ামাগারে যাওয়ার আগে দুটি কলা, সঙ্গে একটি রুটি রাখতে পারেন। ফিরে এসে চারটি কলা, দুটি শসা, দুটি রুটি, সঙ্গে লেবু। দুপুরে এক কাপ ভাত, মাছ ও সবজি ইচ্ছেমতো। রাতে রুটি চারটি, একটি গোল আলু অথবা মিষ্টি আলু ও সবজি।

এছাড়াও শীতে শরীরের মাংসপেশিগুলোও জমাট বেঁধে থাকে কখনো কখনো। এজন্য একদিকে মানুষ যেমন কাজের গতি হারায়, তেমনি দেহকোষেও আলস্য ভর করে। কিন্তু শীতেই মানুষের শরীরে শক্তি সঞ্চিত থাকে বেশি। তাই চাইলে বেশি সময় ধরে শরীর গঠনে মনোযোগী হওয়া যায় এ শীতকালেই।

উপরে