ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮
ডায়েট চার্ট

রমযান মাসের পারফেক্ট ডায়েট চার্ট

20fours kitchen | আপডেট : ৩ জুন, ২০১৮ ০৮:৫০
রমযান মাসের পারফেক্ট ডায়েট চার্ট

চলে এসেছে সিয়াম সাধনার মাস। এই রমজান মাস পুরোটা ঘিরে থাকে নানান আয়োজন। যদিও রোজা রাখা ফরজ এই মাসে তবু ও রোজার পাশাপাশি নামায কালাম এবং বেশি বেশি সোয়াবের আশায় আমরা নানান রকম কাজ করে থাকি। রমজান মাসে  বরকতের রহমতের মাস। কিন্তু এবার রমজান পড়েছে গরমকালে।এবার রোজা রাখতে হবে প্রায় ১৫ ঘন্টা। ইফতারে থাকে নানান রকম খাবার দাবার। যদিও ইহা সবুরের মাস তবুও অনেকেই আছেন যারা এই রমজানের ও নিজেদের ওজন বাড়িয়ে দেইবে ৬/৭ কেজি। এবং পড়ে ওজন বেড়ে গেলে তা নিয়ে পড়বে বিপাকে। চিন্তা নেই আজ আমরা আপনাদের জন্য তাই নিয়ে এসেছি রমজান মাসের জন্য একটি পারফেক্ট ডায়েট চার্ট।


সেহেরিতে যা খাবেনঃ
সেহেরিতে তেল, চর্বি  জাতীয় খাবার ও লবণ মশলা জাতিয় খাবার পরিহার করবেন। কেননা এই সকল খাবার দেহের পানির পরিমান কমিয়ে দেয়। তাই সেহেরিতে সেদ্ধ সবজি, সবজির সালাদ, এবং অল্প পরিমানে ভাত অথবা পাতলা করে বানানো রুটি খেতে পারেন এবং তার সাথে ২ পিস মুরগির মাংসো অথবা এ পিস মাছ খেতে পারেন, আপনি যদি ডিম খেতে ভালোবাসেন তাহলে সেহেরিতে ডিম ও রাখতে পারেন । তবে ভালো হয়  ডাল জাতীয় কিছু খেতে পারলে। এছাড়া ফলমুল, দুধ, টক দই এসব খেতে পারেন এবং অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খাবেন।


ইফতারে যা খাবেনঃ

ইফতারের শুরুতে অবশ্যই লেবু অথবা ডাবের পানি খাবেন এবং চেষ্টা করবেন রঙ দেয়া  কোমল পানীয় গুলো পরিহার করতে। এছাড়া ইফতারে খেজুর, আম শশা,আপেল,গাজর কলা এই জাতীয় ফল গুলো খেতে পারেন। একটা একটা করে খেলে হয়তো অন্য কিছু আর খেতে ইচ্ছা করবে না তাই এগুলোর সালাদ বানায় খেতে পারেন। এতে করে আপনার দেহের ভিটামিন ও মিনারেলস এর ঘাটতি পুরণ হবে। এরপর নামায শেষ করে নিতে পারেন এবং ৩০ মিনিট বিরিতি নিয়ে পিয়াজু,মুড়ি,ও বেগুনি ছোলা মাখা খেতে পারেন। এবং খাওয়ার পরই পানি পান করবেন না অন্তত  ১৫ মিনিট পর পানি করবেন। ভাজা পোড়া শুধু গ্যাস সৃষ্টি নয় ত্বকের জন্যও ক্ষতিকর, তাই এর পরিবর্তে নান রুটি কাবাব অথবা চিড়া দই ও খেতে পারেন।


রাতে যা খাবেনঃ

রাতের খাবারে সবসময় চেষ্টা করবেন ভাত না বেশি খেয়ে সবজি খেতে। আর রুটি খেতে পারলে তো আরো ও ভালো। রাতের যাই খান তার সাথে ১ পিস মাছ,মুরগি অথবা ডিম খাবেন এবং রাতে ঘুমানোর আগে অবশ্যই গরম গরম দুধ অথবা লাচ্ছি খেতে পারেন।

সর্বোপরি ইফতারের পর থেকে সেহেরি অব্দি অবশ্যই পানি খাবেন ৪/৫ লিটার।

 

উপরে