ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮
হেডফোন বেশি ব্যবহারের ঝুঁকি

হেডফোন বেশি ব্যবহারের ঝুঁকি

20fours Desk | আপডেট : ৭ নভেম্বর, ২০১৮ ২১:৩১
হেডফোন বেশি ব্যবহারের ঝুঁকি

আমরা অনেকেই কাজ না থাকেল বা একা থাকলে গান গুনে থাকি সময় কাটানোর জন্য। এমনকি দিন শেষে বাসায় ফেরার পথে জ্যামে বসে থাকতে সবারই বিরক্ত লাগে।  এই বিরক্তকর সময় কাটানোর জন্য হেডফোন কানে লাগিয়ে গান শোনাই হয়ে ওঠে বিরক্তি কাটানোর একমাত্র উপায় তাই না? এমনি বাইরে সবার সাথে একা কোন ভিডিও বা গান শুনতে আমরা হেডফোন ব্যবহার করে থাকি। তাই আজকাল আমরা হেডফোনের ওপরই ভরসা করি। সবসময় হেডফোন ব্যবহার করলে কানের  অনেক ক্ষতি হতে পারে। তাই হেডফোন ব্যবহার ঝুঁকি বেরেই চলছে।

চলুন তাহলে দেখে নেই হেডফোন বেশি ব্যবহারের ঝুঁকি গুলো :

১। হেডফোন একটানা ব্যবহার না করলেও , কিন্তু যখনই হেডফোন কানে দিচ্ছেন ভলিউম থাকে অনেক বেশি। এতে আপনার শ্রবণশক্তি কমে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

২। হেডফোন দিয়ে গান শুনলে শব্দ অনেক দ্রুত কান থেকে মস্তিষ্কে পৌঁছায়। প্রতিনিয়ত যখন কেউ উঁচু ভলিউমে প্রতিনিয়ত কিংবা লম্বা সময় ধরে গান শোনেন, তখন স্টেরিওসিলিয়াতে স্থায়ী ক্ষতি হতে পারে, যা শ্রবণশক্তি নষ্ট করে ফেলে।

হেডফোন ব্যবহারে ঝুঁকি কমাতে যা করতে পারেন :

কানে হেডফোন লাগিয়ে ১ ঘণ্টা গান শুনুন এর বেশি নয়। না হলে ঝুঁকি বাড়াতে পারবে।  

যারা হেডফোন দিয়ে গান শুনতে ভালোবাসেন তারা ভালো মানের হেডফোনে কিনবেন। কারন ভালো মানের হেডফোনে বেইজ কোয়ালিটি ভাল থাকে, যার অর্থ হলো আপনাকে অত জোরে গান শুনতে হবে না, কম ভলিউমেই আপনি সুরের সর্বোচ্চ স্বাদ পাবেন।

হেডফোন দিয়ে একটানা গান না শুনে বিরতি দিয়ে শুনুন। তাহলে কানের ও মস্তিষ্কের ক্ষতি কম হবে।

হেডফোন দিয়ে গান শুনলে শব্দের মাএা সবসময় কম রাখবেন।

উপরে